রংপুর বিভাগের ওপেনার আব্দুল্লাহ আল মামুন বৃহস্পতিবার সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে সিলেট বিভাগের বিপক্ষে (টিয়ার ১) জাতীয় ক্রিকেট লীগের ম্যাচে সিলেট বিভাগের বিপক্ষে তার প্রথম প্রথম-শ্রেণীর ডাবল সেঞ্চুরির মাধ্যমে মঞ্চ আলোড়িত করেন। মামুনের অপরাজিত ২১০ রানের ইনিংসে ভর করে ১৬টি বাউন্ডারি ও ১৩টি সর্বোচ্চ রানের সুবাদে রংপুর ডিক্লেয়ার করার আগে ৭ উইকেটে ৪০৫ রান করে। যে ফিক্সচারটি প্রথম দুই দিন বৃষ্টির কারণে ধুয়ে যায়, তবে একটি অচলাবস্থার মধ্যে শেষ হয়। অপর প্রান্তে অভিজ্ঞ নাঈম ইসলামের সঙ্গে অপরাজিত ৭৯ রানে চতুর্থ দিন শুরু করেন ১৮ বছর বয়সী এই খেলোয়াড়। নাঈম ৬৫ রানে আউট হওয়ার আগে দুজনে মিলে ১৫০ রানের জুটি গড়েন। সিলেটের পেসার আবু জায়েদ চৌধুরী ৭১ রানে চার উইকেট শিকার করে বোলারদের বেছে নেন।

জবাবে ১১৯-২ স্কোরে শেষ দিন শেষ করে সিলেটের ব্যাটসম্যানরা। হোম দলের হয়ে সর্বোচ্চ ৯২ রান করেন ওপেনার তৌফিক খান তুষার। ঢাকা বিভাগ ও চট্টগ্রাম বিভাগের মধ্যকার অপর (টিয়ার-১) ম্যাচটিও একই পরিণতি সহ্য করেছে। ঢাকার ১৫৮-৫ডি-র জবাবে বৃষ্টিবিঘ্নিত লড়াই প্রত্যাশিত ড্রয়ে শেষ হওয়ায় চট্টগ্রাম ৫০-২ স্কোর করে। এদিকে রাজশাহীর শহীদ কামরুজ্জামান স্টেডিয়ামে বরিশাল বিভাগ ঢাকা মেট্রোকে চার উইকেটে হারায়। ২১৪ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ওপেনার রাফসান আল মাহমুদের ৭১ রানের ইনিংসে ভর করে লাইন পার হয়ে যান বরিশাল। সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়াম একাডেমি গ্রাউন্ডে খুলনা বিভাগ ও রাজশাহী বিভাগের মধ্যকার অন্য (টিয়ার-২) ম্যাচটি ড্রয়ে শেষ হয় এবং খুলনার প্রথম ইনিংসের ২৬৭ রানের জবাবে রাজশাহী শেষ দিনে ১২৪-১ গোলে এগিয়ে যায়।