আসন্ন এশিয়া কাপের ম্যাচে ক্যান্ডিতে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ভারতের মুখোমুখি হতে যাচ্ছে পাকিস্তান। নিজেদের প্রথম ম্যাচে নেপালের বিপক্ষে ২৩৮ রানের দুর্দান্ত জয়ের পর, বৃষ্টি-বিঘ্নিত খেলার সম্ভাবনা সহ আবহাওয়া বা মাঠের অবস্থার কারণে শেষ মুহুর্তে সামঞ্জস্য ের প্রয়োজন না হলে ম্যান ইন গ্রিন তাদের জয়ের ফর্মুলা বজায় রাখতে প্রস্তুত বলে মনে হচ্ছে।

ফখর জামানের সাম্প্রতিক ফর্মের লড়াই সত্ত্বেও, পাকিস্তান তাদের বিশ্বস্ত ওপেনিং ব্যাটসম্যানদের ধরে রাখবে বলে আশা করা হচ্ছে। নেপালের বিপক্ষে ১৫১ রানের দুর্দান্ত পারফরম্যান্স ের পর বাবর আজম নেতৃত্ব দেবেন এবং উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যান মোহাম্মদ রিজওয়ান ব্যাটিং লাইনআপে চতুর্থ স্থান দখল করতে চলেছেন।

সালমানের সাম্প্রতিক ব্যাটিং পারফরম্যান্সের কারণে আগা সালমানের পরিবর্তে সৌদ শাকিলকে বেছে নিতে পারে পাকিস্তান। শাকিলের মতো বাঁহাতি ব্যাটসম্যানকে মিডল অর্ডারে অন্তর্ভুক্ত করা ভারতের বাঁহাতি স্পিনার রবীন্দ্র জাদেজা এবং কুলদীপ যাদবকে মোকাবেলা করার কৌশলগত পদক্ষেপ হিসাবে কাজ করতে পারে। তবে বাবর আজম তার খেলোয়াড়দের প্রতি অবিচল বিশ্বাসের জন্য পরিচিত, তাই সম্ভবত আগা সালমান তার অবস্থান ধরে রাখবেন।

নেপালের বিপক্ষে প্রথম ওয়ানডে সেঞ্চুরির পর ইফতিখার আহমেদ ওয়ানডেতে পাকিস্তানের শক্তিশালী ফিনিশিংয়ে অবদান রাখতে আগ্রহী।

সম্প্রতি নেপালের বিপক্ষে নিজের সেরা ওয়ানডে বোলিং পারফরম্যান্স করা শাদাব খান সেই সাফল্যকে আরও এগিয়ে নিয়ে যেতে বদ্ধপরিকর। প্রত্যাশিত মেঘলা আবহাওয়া এবং বৃষ্টির সম্ভাবনা বিবেচনা করে পাকিস্তান তাদের লাইনআপে একজন অতিরিক্ত ফাস্ট বোলার যুক্ত করার কথা বিবেচনা করতে পারে, মোহাম্মদ নওয়াজের পরিবর্তে ফাহিম আশরাফকে সম্ভাব্যভাবে অন্তর্ভুক্ত করতে পারে।

লাইনআপের শেষ তিন স্থানে থাকবেন হারিস রউফ, শাহিন শাহ আফ্রিদি এবং নাসিম শাহের মতো শক্তিশালী ফাস্ট বোলিং ত্রয়ী, যারা তাদের তীব্র গতি এবং ব্যাটসম্যানদের অস্থিতিশীল করার ক্ষমতার জন্য বিখ্যাত। নেপাল ের বিপক্ষে ম্যাচে ইনজুরির শঙ্কা সত্ত্বেও শাহীন ফিট এবং শনিবার ভারতের বিপক্ষে মাঠে নামার জন্য প্রস্তুত।

প্রত্যাশিত পাকিস্তান একাদশ:

ফখর জামান, ইমাম উল হক, বাবর আজম (অধিনায়ক), মোহাম্মদ রিজওয়ান (উইকেটরক্ষক), আগা সালমান, ইফতেখার আহমেদ, শাদাব খান, ফাহিম আশরাফ/মোহাম্মদ নওয়াজ, শাহিন আফ্রিদি, নাসিম শাহ, হারিস রউফ

এশিয়া কাপের জন্য পাকিস্তান স্কোয়াড:

আবদুল্লাহ শফিক, ফখর জামান, ইমাম-উল-হক, বাবর আজম (অধিনায়ক), সালমান আলী আগা, ইফতিখার আহমেদ, সৌদ শাকিল, মোহাম্মদ রিজওয়ান, মোহাম্মদ হারিস, শাদাব খান (সহ-অধিনায়ক), মোহাম্মদ নওয়াজ, উসামা মীর, ফাহিম আশরাফ, হারিস রউফ, মোহাম্মদ ওয়াসিম জুনিয়র, নাসিম শাহ ও শাহিন আফ্রিদি।