ডারউইনের গার্ডেনস ওভালে টপ এন্ড টি-টোয়েন্টি সিরিজের উদ্বোধনী ম্যাচে রোববার বিকেলে পাকিস্তান শাহীনসকে ৫৯ রানের ব্যবধানে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয় নর্দার্ন টেরিটরি স্ট্রাইক।

প্রথমে ব্যাট করতে নেমে নর্দান টেরিটরি স্ট্রাইক নির্ধারিত ২০ ওভারে পাঁচ উইকেটে ১৮৫ রান তোলে। পরম উপ্পাল দুর্দান্ত পারফরম্যান্স দেখিয়েছিলেন, মাত্র ২৮ বলে ৫৯ রানে অপরাজিত ছিলেন, যার মধ্যে ছয়টি চার এবং দুটি ছক্কা ছিল। উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান জশ কানও উল্লেখযোগ্য অবদান রেখেছিলেন, ৩১ বলে দুটি চার এবং চারটি ছক্কা সহ দ্রুত ৪৭ রান করেছিলেন।

পাকিস্তানের শাহিন্সের পক্ষে আলিয়ান মাহমুদ ও আরাফাত মিনহাস দুটি করে উইকেট নেন।

জবাবে ডানহাতি ফাস্ট বোলার টম মেনজিসের কাছে ইনিংসের প্রথম দুই বলে দুই উইকেট হারিয়ে শুরুতেই ধাক্কা খেয়েছিল পাকিস্তান শাহিনরা। তবে উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান শামিল হোসেন ও অধিনায়ক রোহেল নাজির তৃতীয় উইকেটে ৪৯ রানের জুটি গড়ে দলকে স্থিতিশীল করেন। শামিল ২৩ বলে ২৬ রান করেন, যার মধ্যে দুটি চার ও একটি ছক্কা ছিল। আরাফাত (৫ বলে ৩ রান) বিদায় নিলে শাহীনরা ৮.৫ ওভারে ৪ উইকেটে ৬২ রান করে।

রোহাইল দুর্গ ধরে রেখেছিলেন তবে শেষ পর্যন্ত ১৩ তম ওভারে ৩৩ বলে দুটি ছক্কা এবং একটি চার সহ ৪১ রান করার পরে আউট হন। মোহাম্মদ ইরফান খান ও আহমেদ খান যথাক্রমে ২০ ও ১৯ রান করেন।

তবে নর্দার্ন টেরিটরি স্ট্রাইকের জ্যাক উড এবং টম মেনজিস প্রত্যেকে চারটি করে উইকেট নিয়ে পাকিস্তান শাহীনসকে ১৮.৪ ওভারে ১২৬ রানে গুটিয়ে দিতে সক্ষম হন।

সংক্ষেপে:

  • নর্দার্ন টেরিটরি স্ট্রাইকপাকিস্তান শাহীনসকে ৫৯ রানে পরাজিত করে।
  • নর্দার্ন টেরিটরি স্ট্রাইক: ২০ ওভারে ১৮৫/৫ (পরম উপল অপরাজিত ৫৯, জশ কান ৪৭; আরাফাত মিনহাস ২-২০, আলিয়ান মাহমুদ ২-৪২)
  • পাকিস্তান শাহীনস: ১৮.৪ ওভারে অলআউট ১২৬ (রোহেল নাজির ৪১, শামিল হুসেন ২৬, মোহাম্মদ ইরফান খান ২০, আহমেদ খান ১৯; মো. টম মেনজিস ৪-২৪, জ্যাক উড ৪-২৮)