দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে টি-টোয়েন্টি ও ওয়ানডে দলের দায়িত্ব নেওয়ার জন্য প্রস্তুত মিচেল মার্শ মঙ্গলবার যতদিন প্রয়োজন ততদিন অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়কত্ব করার ইচ্ছা প্রকাশ করেছেন।

চোটপাওয়া ওয়ানডে অধিনায়ক প্যাট কামিন্সের জায়গায় মাঠে নামছেন মার্শ, অন্যদিকে অ্যারন ফিঞ্চের অবসরের পর ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া এখনও স্থায়ী টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক নির্ধারণ করতে পারেনি।

সীমিত ওভারের ফরম্যাটে অধিনায়কত্বের এই ভূমিকা মার্শের ঘটনাবহুল বছরকে আরও বাড়িয়ে তোলে, যার ফলে তিনি এপ্রিলে বিয়ে করেছিলেন এবং অ্যাশেজ সিরিজের সময় টেস্ট দলে ফিরে সেঞ্চুরি করেছিলেন।

“এটা অবশ্যই এক বছরের ঝড় ছিল। সিডনিতে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলতে গিয়ে তিনি বলেন, ‘বিয়ে টা বেশ পরিপূর্ণ হয়েছে। “আমরা দক্ষিণ আফ্রিকা সফর ের মধ্য দিয়ে যাব এবং পরিস্থিতি মূল্যায়ন করব। দলের যতদিন প্রয়োজন ততদিন আমি অধিনায়কত্ব করতে প্রস্তুত। দেখা যাক কিভাবে সব কিছু ঘটে”।

অক্টোবরে শুরু হতে যাওয়া ৫০ ওভারের বিশ্বকাপের আগে ভারতে টেস্ট দলের নেতৃত্ব দেওয়া কামিন্স দলে যোগ দেবেন বলে আশা করা হচ্ছে।

দক্ষিণ আফ্রিকায় তিনটি ওয়ানডে ও পাঁচটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচে অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়কত্ব করার সময় মার্শ ইঙ্গিত দিয়েছিলেন যে তিনি “চাকাটি পুনরায় চালু করার” চেষ্টা করবেন না। তিনি বলেন, ‘আমার মতে নেতৃত্বের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ দিক হচ্ছে নিজের প্রতি সৎ থাকা। “আমি একজন কার্যকর অধিনায়ক হতে চাই। তা না হলে আমি বেশিদিন এই ভূমিকায় থাকব না। এটা একদম ঠিক আছে। আমি শুধু এই সুযোগ নিয়ে উচ্ছ্বসিত’।

ইনজুরির কারণে ছিটকে যাওয়া নিয়মিত ফাস্ট বোলার মিচেল স্টার্কের জায়গায় বাঁহাতি পেস বোলার স্পেন্সার জনসনকে সম্ভাব্য অভিষেকের জন্য প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে দেখছেন মার্শ।

তরুণ লেগ স্পিনার তানভীর সাঙ্গাও অভিষেকের লক্ষ্য নিয়ে মাঠে নামবেন। মার্শ বলেন, ‘আমার কোনো সন্দেহ নেই যে আগামী কয়েক বছরের মধ্যে আমরা তাদের অস্ট্রেলিয়ার প্রতিনিধিত্ব করতে দেখব এবং এই দক্ষিণ আফ্রিকা সফর আমাদের তাদের দক্ষতা মূল্যায়নের সুযোগ দেবে।

অ্যাশেজের সময় কব্জির চোট থেকে সেরে ওঠায় এই সফরে অনুপস্থিত রয়েছেন স্টিভ স্মিথ। মঙ্গলবার স্মিথ জানান, লর্ডসে দ্বিতীয় টেস্টে তার বাম হাতের কব্জিতে একটি টেন্ডন ছিঁড়ে গেছে, যা দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজে ওপেনিংয়ে হাত দেওয়ার আশা কেড়ে নিয়েছে।

“এটা কিছুটা স্বপ্নের কাজ। অস্ট্রেলিয়ার ব্রডকাস্টার ফক্স স্পোর্টসকে তিনি বলেন, ‘সবাই টি-টোয়েন্টিতে ব্যাটিং শুরু করতে চায়। “এটা খুব বেশি চাপ নিয়ে আসে না; তুমি শুধু বাইরে যাও এবং তোমার খেলা টা খেলো”।