এশিয়া কাপ নিয়ে অচলাবস্থা অব্যাহত থাকায় চলমান আলোচনার মধ্যেই নিজেদের অবস্থান তুলে ধরেছে শ্রীলঙ্কা ও বাংলাদেশ। পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের (পিসিবি) প্রস্তাবিত হাইব্রিড মডেলের বিরুদ্ধে অনড় অবস্থানে রয়েছে ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ড (বিসিসিআই)।

পরিস্থিতি বিবেচনায় শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট (এসএলসি) সুযোগ পেলে ইভেন্টআয়োজনে প্রস্তুত থাকার কথা জানিয়েছে। তবে এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবে এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিল (এসিসি)। ক্রিকবাজকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে এসএলসির এক জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা বলেন, ‘স্বল্প সময়ে এশিয়া কাপ আয়োজনের জন্য এসএলসি প্রস্তুত। এখন সিদ্ধান্ত দুদকের ওপর নির্ভর করছে।

বিসিসিআই সচিব জয় শাহ পিসিবির প্রস্তাবিত হাইব্রিড মডেলের সম্ভাব্য প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করার পরে এসএলসির এই বিবৃতি এসেছে।

একইভাবে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডও (বিসিবি) ২০২৩ সালের এশিয়া কাপ নিয়ে আগ্রহ ও সংশয় প্রকাশ করেছে। বিসিবির ক্রিকেট অপারেশন্স চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস বলেন, তারা যে মডেলই বেছে নিন না কেন টুর্নামেন্টে অংশ নিতে আগ্রহী। তিনি আরও বলেন, ‘যদি এসিসি সিদ্ধান্ত নেয় যে টুর্নামেন্টটি দুবাইয়ে অনুষ্ঠিত হবে এবং অন্য সদস্যরা রাজি হন, তাহলে আমাদের সেখানে খেলতে হবে।

এছাড়াও, বিসিবি দুবাইয়ে খেলার বিষয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে কারণ চরম আবহাওয়ার কারণে তাদের খেলোয়াড়দের অস্বস্তি এবং ইনজুরি হতে পারে। তবে এসএলসির মতো বিসিবিও চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত স্থগিত করেছে গভর্নিং বডি এসিসির কাছে।