ব্যাটার অ্যালেক্স হেলস বলেন যে ইংল্যান্ডের দল থেকে তার তিন বছরের অনুপস্থিতির সময় তিনি পরিপক্ক হয়ে উঠেন, তিনি যোগ করেন যে অস্ট্রেলিয়ায় টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ অভিযানে তার দেশকে সহায়তা করার জন্য তিনি “সত্যিই উন্মুখ”।জনি বেয়ারস্টোর পরিবর্ত হিসেবে চলতি মাসেই টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ দলে ডাক পায় ৩৩ বছর বয়সী হেলস।২০১৯ সালে, হেলসকে ৫০ ওভারের বিশ্বকাপের জন্য প্রাথমিক দল থেকে প্রত্যাহার করা হয়। গার্ডিয়ান পত্রিকা রিপোর্ট করে যে তিনি বিনোদনমূলক মাদক ব্যবহারের জন্য তিন সপ্তাহের নিষেধাজ্ঞা ভোগ করে।” পাকিস্তানে ইংল্যান্ডের টি-টোয়েন্টি সিরিজের আগে হেলস সাংবাদিকদের বলেন,আমি মনে করি আমি বদলে গেছি। আমি অবশ্যই পরিপক্ক হয়েছি। আমি এখন আমার ৩০-এর দশকে স্বাচ্ছন্দ্যে আছি এবং একজন অভিজ্ঞ হয়ে উঠছি।

অস্ট্রেলিয়ায় টি-টোয়েন্টি বিগ ব্যাশ লীগে খেলা হেলস বলেন, টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সময় তিনি তার অভিজ্ঞতাকে ভালোভাবে কাজে লাগানোর আশা করেন ।”হেলস বলেন ,আমি ভেবেছিলাম যে সুযোগটি আর আসবে না। তিন বছর দলে না থাকাটা হতাশাজনক ছিলাম।”আমার মনে হয়, যে আমি এই তিন বছর ধরে আমার ক্যারিয়ারের সেরা ক্রিকেট খেলছি, তাই এই সুযোগটি আবার পাওয়া এমন কিছু যা নিয়ে আমি সত্যিই গর্বিত এবং এমন কিছু যা আমি সত্যিই আশা করছি, বিশেষ করে অস্ট্রেলিয়ায় বিশ্বকাপ, আমার অনেক অভিজ্ঞতা রয়েছে।”আমি মনে করি আমি এই দলকে এগিয়ে নিয়ে যেতে সাহায্য করতে পারি।২২ অক্টোবর পার্থে আফগানিস্তানের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ অভিযান শুরু করবে ইংল্যান্ড।