টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে এশিয়ার দলটি যুক্তরাষ্ট্র ও ওয়েস্ট ইন্ডিজে তাদের দুটি ম্যাচই জিতেছে, যেখানে বেশ কয়েকজন খেলোয়াড় অসাধারণ পারফরম্যান্স করেছেন।

গায়ানায় নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে জোড়া উইকেট নিয়ে অলরাউন্ডারদের তালিকায় এক নম্বরে অভিজ্ঞ মোহাম্মদ নবী। দুই ধাপ এগিয়ে অস্ট্রেলিয়ার মার্কাস স্টয়নিস তিন ধাপ এগিয়ে দ্বিতীয় ও সাবেক শীর্ষ র ্যাঙ্কধারী সাকিব আল হাসান পঞ্চম স্থানে নেমে গেছেন।

নবী একমাত্র আফগান খেলোয়াড় নন। দুই ইনিংসে ১৫৬ রান করে শীর্ষে থাকা ওপেনার রহমানউল্লাহ গুরবাজ টি-টোয়েন্টি ব্যাটার র ্যাঙ্কিংয়ে আট ধাপ এগিয়ে ১২তম স্থানে উঠে এসেছেন।

পাকিস্তানের বাবর আজম (তৃতীয়), ইংল্যান্ডের জস বাটলার (পঞ্চম পর্যন্ত), ওয়েস্ট ইন্ডিজের ব্র্যান্ডন কিং (সপ্তম পর্যন্ত) এবং অস্ট্রেলিয়ার ট্রাভিস হেড (দশম পর্যন্ত) শীর্ষ দশে রয়েছেন।

টি-টোয়েন্টি বোলারদের মধ্যে শীর্ষে রয়েছেন ইংল্যান্ডের স্পিনার আদিল রশিদ এবং দ্বিতীয় স্থানে রয়েছেন শ্রীলঙ্কার ওয়ানিন্দু হাসারাঙ্গা।

আফগানিস্তানের রশিদ খান (তৃতীয় স্থানে) ও ফজলহক ফারুকি (চতুর্থ স্থানে) এবং দক্ষিণ আফ্রিকার আনরিখ নর্টজে (সমান চতুর্থ) তিন ম্যাচে ৮ উইকেট নিয়ে র ্যাঙ্কিংয়ের উপরে উঠে এসেছেন।

শ্রীলঙ্কা ও দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ভালো পারফরম্যান্সের পর বাংলাদেশের মুস্তাফিজুর রহমান (১৩তম পর্যন্ত), তাসকিন আহমেদ (১৯ পর্যন্ত) ও রিশাদ হোসেন (৩০তম পর্যন্ত) র ্যাঙ্কিংয়ে উন্নতি করেছেন।