স্টোকস আশা করছেন, ২০১৫ সালের পর অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে প্রথম টেস্ট সিরিজ জিততে পারবে ইংল্যান্ড।

এজবাস্টন, লর্ডস, ওল্ড ট্র্যাফোর্ড, হেডিংলি এবং ওভালে গ্রাউন্ডসম্যান চান এই অলরাউন্ডার, যাতে দ্রুত গতির পিচ তৈরি করা যায়, যাতে ইংল্যান্ড অধিনায়ক ের দায়িত্ব গ্রহণের পর থেকে দারুণ সাফল্যের সঙ্গে আগ্রাসী গেম-প্ল্যান ব্যবহার করতে পারে।

মঙ্গলবার স্কাই স্পোর্টসকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে স্টোকস বলেন, ‘ইংল্যান্ডের গ্রাউন্ড স্টাফদের সঙ্গে আমরা খুব পরিষ্কার যে আমরা কী ধরনের উইকেট চাই এবং তারা আমাদের প্রতি খুবই প্রতিক্রিয়াশীল, যা ভালো।

তিনি বলেন, ‘প্রত্যেক খেলোয়াড়ই জানে যে অ্যাশেজে চাপ, এক্সপোজার, সব ধরনের জিনিস সবকিছু কিছুটা বেড়ে যায়, কিন্তু আমরা যা করি তা ধরে রাখব।

ফেব্রুয়ারিতে ওয়েলিংটনে সিরিজের নির্ণায়ক ম্যাচে ইংল্যান্ড এক রানে হেরে প্রথম ইনিংস ঘোষণা করে ফলো-অন কার্যকর করার পর নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে এই দর্শনকে দ্বারপ্রান্তে নিয়ে যান তিনি।র