[fusion_builder_container type=”flex” hundred_percent=”no” hundred_percent_height=”no” min_height_medium=”” min_height_small=”” min_height=”” hundred_percent_height_scroll=”no” align_content=”stretch” flex_align_items=”flex-start” flex_justify_content=”flex-start” flex_column_spacing=”” hundred_percent_height_center_content=”yes” equal_height_columns=”no” container_tag=”div” menu_anchor=”” hide_on_mobile=”small-visibility,medium-visibility,large-visibility” status=”published” publish_date=”” class=”” id=”” spacing_medium=”” margin_top_medium=”” margin_bottom_medium=”” spacing_small=”” margin_top_small=”” margin_bottom_small=”” margin_top=”” margin_bottom=”” padding_dimensions_medium=”” padding_top_medium=”” padding_right_medium=”” padding_bottom_medium=”” padding_left_medium=”” padding_dimensions_small=”” padding_top_small=”” padding_right_small=”” padding_bottom_small=”” padding_left_small=”” padding_top=”” padding_right=”” padding_bottom=”” padding_left=”” link_color=”” link_hover_color=”” border_sizes=”” border_sizes_top=”” border_sizes_right=”” border_sizes_bottom=”” border_sizes_left=”” border_color=”” border_style=”solid” box_shadow=”no” box_shadow_vertical=”” box_shadow_horizontal=”” box_shadow_blur=”0″ box_shadow_spread=”0″ box_shadow_color=”” box_shadow_style=”” z_index=”” overflow=”” gradient_start_color=”” gradient_end_color=”” gradient_start_position=”0″ gradient_end_position=”100″ gradient_type=”linear” radial_direction=”center center” linear_angle=”180″ background_color=”” background_image=”” skip_lazy_load=”” background_position=”center center” background_repeat=”no-repeat” fade=”no” background_parallax=”none” enable_mobile=”no” parallax_speed=”0.3″ background_blend_mode=”none” video_mp4=”” video_webm=”” video_ogv=”” video_url=”” video_aspect_ratio=”16:9″ video_loop=”yes” video_mute=”yes” video_preview_image=”” render_logics=”” absolute=”off” absolute_devices=”small,medium,large” sticky=”off” sticky_devices=”small-visibility,medium-visibility,large-visibility” sticky_background_color=”” sticky_height=”” sticky_offset=”” sticky_transition_offset=”0″ scroll_offset=”0″ animation_type=”” animation_direction=”left” animation_speed=”0.3″ animation_offset=”” filter_hue=”0″ filter_saturation=”100″ filter_brightness=”100″ filter_contrast=”100″ filter_invert=”0″ filter_sepia=”0″ filter_opacity=”100″ filter_blur=”0″ filter_hue_hover=”0″ filter_saturation_hover=”100″ filter_brightness_hover=”100″ filter_contrast_hover=”100″ filter_invert_hover=”0″ filter_sepia_hover=”0″ filter_opacity_hover=”100″ filter_blur_hover=”0″][fusion_builder_row][fusion_builder_column type=”1_1″ align_self=”auto” content_layout=”column” align_content=”flex-start” valign_content=”flex-start” content_wrap=”wrap” spacing=”” center_content=”no” link=”” target=”_self” link_description=”” min_height=”” hide_on_mobile=”small-visibility,medium-visibility,large-visibility” sticky_display=”normal,sticky” class=”” id=”” type_medium=”” type_small=”” order_medium=”0″ order_small=”0″ dimension_spacing_medium=”” dimension_spacing_small=”” dimension_spacing=”” dimension_margin_medium=”” dimension_margin_small=”” margin_top=”” margin_bottom=”” padding_medium=”” padding_small=”” padding_top=”” padding_right=”” padding_bottom=”” padding_left=”” hover_type=”none” border_sizes=”” border_color=”” border_style=”solid” border_radius=”” box_shadow=”no” dimension_box_shadow=”” box_shadow_blur=”0″ box_shadow_spread=”0″ box_shadow_color=”” box_shadow_style=”” overflow=”” background_type=”single” gradient_start_color=”” gradient_end_color=”” gradient_start_position=”0″ gradient_end_position=”100″ gradient_type=”linear” radial_direction=”center center” linear_angle=”180″ background_color=”” background_image=”” background_image_id=”” background_position=”left top” background_repeat=”no-repeat” background_blend_mode=”none” render_logics=”” filter_type=”regular” filter_hue=”0″ filter_saturation=”100″ filter_brightness=”100″ filter_contrast=”100″ filter_invert=”0″ filter_sepia=”0″ filter_opacity=”100″ filter_blur=”0″ filter_hue_hover=”0″ filter_saturation_hover=”100″ filter_brightness_hover=”100″ filter_contrast_hover=”100″ filter_invert_hover=”0″ filter_sepia_hover=”0″ filter_opacity_hover=”100″ filter_blur_hover=”0″ animation_type=”” animation_direction=”left” animation_speed=”0.3″ animation_offset=”” last=”no” border_position=”all”][fusion_content_boxes layout=”icon-with-title” columns=”1″ link_type=”” button_span=”” link_area=”” link_target=”” icon_align=”left” animation_type=”” animation_direction=”left” animation_speed=”0.3″ animation_delay=”” animation_offset=”” hide_on_mobile=”small-visibility,medium-visibility,large-visibility” class=”” id=”” title_size=”” heading_size=”2″ title_color=”” hue=”” saturation=”” lightness=”” alpha=”” body_color=”” backgroundcolor=”” icon=”” iconflip=”” iconrotate=”” iconspin=”no” iconcolor=”” icon_circle=”” icon_circle_radius=”” circlecolor=”” circlebordersize=”” circlebordercolor=”” outercirclebordersize=”” outercirclebordercolor=”” icon_size=”” icon_hover_type=”” hover_accent_color=”” image=”” image_id=”” image_max_width=”” margin_top=”” margin_bottom=””][fusion_content_box title=”আজকের ম্যাচের ভবিষ্যদ্বাণীর সম্পূর্ণ বিবরণ” backgroundcolor=”” hue=”” saturation=”” lightness=”” alpha=”” icon=”” iconflip=”” iconrotate=”” iconspin=”” iconcolor=”” circlecolor=”” circlebordersize=”” circlebordercolor=”” outercirclebordersize=”” outercirclebordercolor=”” image=”” image_id=”” image_max_width=”” link=”” linktext=”Read More” link_target=”” animation_type=”” animation_direction=”left” animation_speed=”0.3″ animation_offset=””]ওয়ানডে ক্রিকেটে বড় লড়াইয়ের সাক্ষী হতে প্রস্তুত ক্রিকেটপ্রেমীরা। অস্ট্রেলিয়া সফর, ২০২২-এর চতুর্থ ওডিআই ম্যাচটি মঙ্গলবার, ২১ শে জুন, ২০২২ তারিখে কলম্বোর আর প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। আমরা ২০২২ সালের অস্ট্রেলিয়া সফরের আজ নিরাপদ, নিখুঁত, নিরাপদ এবং নির্ভুল ম্যাচের ভবিষ্যদ্বাণী পোস্ট করছি।[/fusion_content_box][fusion_content_box title=”অস্ট্রেলিয়ার শ্রীলঙ্কা সফর ৪র্থ ওডিআই ওভারভিউ” backgroundcolor=”” hue=”” saturation=”” lightness=”” alpha=”” icon=”” iconflip=”” iconrotate=”” iconspin=”” iconcolor=”” circlecolor=”” circlebordersize=”” circlebordercolor=”” outercirclebordersize=”” outercirclebordercolor=”” image=”” image_id=”” image_max_width=”” link=”” linktext=”Read More” link_target=”” animation_type=”” animation_direction=”left” animation_speed=”0.3″ animation_offset=””]শ্রীলঙ্কা টি-টোয়েন্টি সিরিজে ২-১ ব্যবধানে হারলেও পাঁচ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে খেলা তিনটি ম্যাচের মধ্যে দুটিতে জিতেছে। এখন তারা সিরিজে নেতৃত্ব দিচ্ছে এবং বাকি দুটি ওডিআই ম্যাচের মধ্যে মাত্র একটি জয় দরকার। এই সিরিজটি বৃষ্টিতে বিঘ্নিত হয়েছিল কারণ ডিএলএস পদ্ধতির মাধ্যমে তিনটি ম্যাচের মধ্যে দুটি সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল। অস্ট্রেলিয়া এখনও ওয়ানডে সিরিজে থাকলেও সিরিজে টিকে থাকতে হলে এই ম্যাচ জিততেই হবে। অস্ট্রেলিয়া দুর্বল দল নয়। ওরা যে কোনও ম্যাচেই প্রবল ভাবে ঘুরে দাঁড়াতে পারে। এই ম্যাচটি খুব আকর্ষণীয় হতে চলেছে কারণ উভয় দলই তাদের পূর্ণ শক্তি নিয়ে খেলবে।[/fusion_content_box][fusion_content_box title=”শ্রীলঙ্কা পর্যালোচনা” backgroundcolor=”” hue=”” saturation=”” lightness=”” alpha=”” icon=”” iconflip=”” iconrotate=”” iconspin=”” iconcolor=”” circlecolor=”” circlebordersize=”” circlebordercolor=”” outercirclebordersize=”” outercirclebordercolor=”” image=”” image_id=”” image_max_width=”” link=”” linktext=”Read More” link_target=”” animation_type=”” animation_direction=”left” animation_speed=”0.3″ animation_offset=””]অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে এই হোম সিরিজে চাপে ছিল শ্রীলঙ্কার বোলিং বিভাগ। আমরা টি-টোয়েন্টি সিরিজে এবং ওয়ানডে ম্যাচেও এটা দেখেছি। সাম্প্রতিকতম ম্যাচটি এর একটি বড় উদাহরণ ছিল যেখানে তারা তাদের ৫০ ওভারের ইনিংসে ২৯১ রান তুলেছিল। দুষ্মন্ত চামিরা, মাহেশ থিকসানা, চামিকা করুনারত্নে, দুনিথ ওয়েলালেজ, জেফরি ভান্ডারসে, ধনঞ্জয়া ডি সিলভা এবং অধিনায়ক দাসুন শানাকা শ্রীলঙ্কার বোলিং বিভাগের নেতৃত্ব দিচ্ছেন। ভ্যান্ডারসে আগের ম্যাচে সবচেয়ে সফল বোলার ছিলেন, যেখানে ১০ ওভারে তার নামের পাশে তিনটি উইকেট ছিল এবং তাকে ৪৯ রানে চার্জ করা হয়েছিল। চামিরা, ধনঞ্জয়া ডি সিলভা ও ডি ওয়েলালেজ একটি করে উইকেট নেন।

এম থিকসানা, সি করুনারত্নে এবং দাসুন শানাকা এমন বোলার ছিলেন যারা কোনও উইকেট নিতে পারেননি। বিশেষ করে এই ওয়ানডে সিরিজে শ্রীলঙ্কার ব্যাটিং বিভাগ দুর্দান্ত ছিল। নিরোশান ডিকভেলা, পাথুম নিসানকা, কুসল মেন্ডিস, ধনঞ্জয়া ডি সিলভা এবং চারিথ আসালাঙ্কা শ্রীলঙ্কার শীর্ষস্থানীয় ব্যাটসম্যান। আগের ম্যাচে সেঞ্চুরি করা সবচেয়ে সফল ব্যাটসম্যান ছিলেন পাথুম নিশাঙ্কা। ১১টি বাউন্ডারি ও দুটি বিশাল ছক্কার সাহায্যে মোট ১৩৭ রান করেন তিনি। কুসল মেন্ডিস ছিলেন অন্য ব্যাটসম্যান যিনি ব্যাট হাতে খুব ভাল ছিলেন। ১০২ স্ট্রাইক রেটে ৮৭ রান করেন তিনি। তিনি তার ইনিংসের সময় আটটি বাউন্ডারি মেরেছিলেন।[/fusion_content_box][fusion_content_box title=”অস্ট্রেলিয়া পর্যালোচনা” backgroundcolor=”” hue=”” saturation=”” lightness=”” alpha=”” icon=”” iconflip=”” iconrotate=”” iconspin=”” iconcolor=”” circlecolor=”” circlebordersize=”” circlebordercolor=”” outercirclebordersize=”” outercirclebordercolor=”” image=”” image_id=”” image_max_width=”” link=”” linktext=”Read More” link_target=”” animation_type=”” animation_direction=”left” animation_speed=”0.3″ animation_offset=””]আমরা যখন শ্রীলঙ্কার সাথে তুলনা করি তখন অস্ট্রেলিয়া সামগ্রিকভাবে একটি শক্তিশালী এবং অভিজ্ঞ দল, কিন্তু তারা ভাল পারফর্ম করতে পারেনি, যেমনটি আমরা অনেকেই আশা করছিলাম। অস্ট্রেলিয়ার ব্যাটিং বিভাগ বিশ্বের অন্যতম শক্তিশালী ব্যাটিং অর্ডার হিসেবে পরিচিত। ডেভিড ওয়ার্নার, অ্যারন ফিঞ্চ, মিচেল মার্শ, লাবুশেন, অ্যালেক্স ক্যারি, ট্রাভিস হেড এবং গ্লেন ম্যাক্সওয়েল অস্ট্রেলিয়ার তারকা ব্যাটসম্যান। আগের ম্যাচে যেখানে তারা ৫০ ওভারে ২৯১ রান করেছিল সেখানে তারা ভালো ছিল। তাদের দিক থেকে প্রায় সব ব্যাটসম্যানই বোর্ডে কিছু রান তুলেছিলেন। হেড আগের ম্যাচে সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক ছিলেন ৬৫ বলে তিনটি বাউন্ডারি ও একই বিশাল ছক্কার সাহায্যে ৭০ রান করে। অ্যারন ফিঞ্চ ছিলেন অন্য ব্যাটসম্যান যিনি বোর্ডে কিছু রান রেখেছিলেন। তিনি মোট ৬২ রান করেছিলেন এবং তার ইনিংসের সময় চারটি বাউন্ডারি এবং একটি বিশাল ছক্কা মেরেছিলেন।

অ্যালেক্স ক্যারিও আগের ম্যাচে ভাল পারফর্ম করেছিলেন তবে তিনি তার পঞ্চাশটি সম্পূর্ণ করতে না পারায় এবং ৪৯ রান করার কারণে তিনি দুর্ভাগ্যজনকও ছিলেন। গ্লেন ম্যাক্সওয়েল ৩৩ রান করেন এবং লাবুশেন ২৯ রান করতে সক্ষম হন। আগের ম্যাচে নিজেদের বোলিং বিভাগের সবচেয়ে বাজে পারফরম্যান্সের কারণে হেরেছিল অস্ট্রেলিয়া। তারা ২৯২ রানের লক্ষ্য রক্ষা করতে ব্যর্থ হয় এবং ৪৮.৩ ওভারে এই লক্ষ্যটি ফাঁস করে দেয়। জশ হ্যাজলউড, ঝাই রিচার্ডসন, গ্লেন ম্যাক্সওয়েল, ম্যাথু কুহনেম্যান, ক্যামেরন গ্রিন, মার্নাস লাবুশেন এবং ট্রাভিস হেড আগের ম্যাচে অস্ট্রেলিয়ার মূল বোলার ছিলেন। ঝাই রিচার্ডসন অস্ট্রেলিয়ার পক্ষে আগের ম্যাচে একমাত্র সফল বোলার ছিলেন যিনি নয় ওভারে দুটি উইকেট নিয়েছিলেন এবং তাকে ৩৯ রানে চার্জ করা হয়েছিল। গ্লেন ম্যাক্সওয়েল এবং জশ হ্যাজলউড একটি করে উইকেট তুলে নিয়েছিলেন এবং তাদের দলের অন্য কোনও বোলার কোনও উইকেট নিতে পারেননি।[/fusion_content_box][fusion_content_box title=”শ্রীলংকার ওডিআই ইতিহাস” backgroundcolor=”” hue=”” saturation=”” lightness=”” alpha=”” icon=”” iconflip=”” iconrotate=”” iconspin=”” iconcolor=”” circlecolor=”” circlebordersize=”” circlebordercolor=”” outercirclebordersize=”” outercirclebordercolor=”” image=”” image_id=”” image_max_width=”” link=”” linktext=”Read More” link_target=”” animation_type=”” animation_direction=”left” animation_speed=”0.3″ animation_offset=””]শ্রীলঙ্কা মোট ৮৭৫ টি ওডিআই ম্যাচ খেলেছে যেখানে তারা ৩৯৯ টি জিতেছে এবং বিপক্ষ দলগুলি ৪৩৩ টি ম্যাচ জিতেছে। তাদের ৩২ টি ম্যাচ কোনও ফলাফল ছাড়াই শেষ হয়েছিল এবং পাঁচটি ম্যাচ টাই হয়েছিল।[/fusion_content_box][fusion_content_box title=”অস্ট্রেলিয়ার ওডিআই ইতিহাস” backgroundcolor=”” hue=”” saturation=”” lightness=”” alpha=”” icon=”” iconflip=”” iconrotate=”” iconspin=”” iconcolor=”” circlecolor=”” circlebordersize=”” circlebordercolor=”” outercirclebordersize=”” outercirclebordercolor=”” image=”” image_id=”” image_max_width=”” link=”” linktext=”Read More” link_target=”” animation_type=”” animation_direction=”left” animation_speed=”0.3″ animation_offset=””]অস্ট্রেলিয়া এখন পর্যন্ত ৯৬৫টি ওয়ানডে ম্যাচ খেলেছে। তারা ৫৮৩ টি ম্যাচ জিতেছে এবং ৩৩৯ টি ম্যাচ হেরেছে। তাদের ৩৪ টি ম্যাচ কোনও ফলাফল ছাড়াই শেষ হয়েছিল এবং নয়টি ম্যাচ টাই হয়েছিল।[/fusion_content_box][fusion_content_box title=”শ্রীলঙ্কা বনাম অস্ট্রেলিয়া ওডিআই ইতিহাস” backgroundcolor=”” hue=”” saturation=”” lightness=”” alpha=”” icon=”” iconflip=”” iconrotate=”” iconspin=”” iconcolor=”” circlecolor=”” circlebordersize=”” circlebordercolor=”” outercirclebordersize=”” outercirclebordercolor=”” image=”” image_id=”” image_max_width=”” link=”” linktext=”Read More” link_target=”” animation_type=”” animation_direction=”left” animation_speed=”0.3″ animation_offset=””]অস্ট্রেলিয়া শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ১০১ টি ম্যাচ খেলেছিল যেখানে তারা ৬২ টি ম্যাচ জিতেছিল এবং শ্রীলঙ্কা ৩৫ টি ম্যাচ জিতেছিল। এই দুই দলের মধ্যে চারটি ম্যাচ শেষ হয় কোন ফলাফল ছাড়াই।[/fusion_content_box][fusion_content_box title=”আজকের ম্যাচ ভবিষ্যদ্বাণীতে প্রিয় দল” backgroundcolor=”” hue=”” saturation=”” lightness=”” alpha=”” icon=”” iconflip=”” iconrotate=”” iconspin=”” iconcolor=”” circlecolor=”” circlebordersize=”” circlebordercolor=”” outercirclebordersize=”” outercirclebordercolor=”” image=”” image_id=”” image_max_width=”” link=”” linktext=”Read More” link_target=”” animation_type=”” animation_direction=”left” animation_speed=”0.3″ animation_offset=””]

ম্যাচের ভবিষ্যদ্বাণী অনুযায়ী, এই ম্যাচ জেতার জন্য অস্ট্রেলিয়াই ফেভারিট দল। এই ম্যাচে অস্ট্রেলিয়া কেন একটি প্রিয় দল, তার কারণগুলি নীচে উল্লেখ করা হয়েছে:

  • শ্রীলঙ্কা এখন পর্যন্ত তিনটি ওডিআই ম্যাচের মধ্যে দুটিতে জিতেছে।
  • শ্রীলঙ্কার সাথে তুলনা করলে অস্ট্রেলিয়া সামগ্রিকভাবে একটি শক্তিশালী দল।
  • শ্রীলঙ্কার বোলিং বিভাগ ভালো ফর্মে ফিরেছে।
  • অস্ট্রেলিয়ার ব্যাটিং অর্ডার ভালো ফর্মে আছে।
  • অস্ট্রেলিয়ারও শক্তিশালী বোলিং বিভাগ আছে।
  • শ্রীলংকার হোম গ্রাউন্ড এবং ভিড়ের সুবিধা রয়েছে

[/fusion_content_box][fusion_content_box title=”উভয় দলের জন্য আজকের ম্যাচের জয়ের সম্ভাবনা” backgroundcolor=”” hue=”” saturation=”” lightness=”” alpha=”” icon=”” iconflip=”” iconrotate=”” iconspin=”” iconcolor=”” circlecolor=”” circlebordersize=”” circlebordercolor=”” outercirclebordersize=”” outercirclebordercolor=”” image=”” image_id=”” image_max_width=”” link=”” linktext=”Read More” link_target=”” animation_type=”” animation_direction=”left” animation_speed=”0.3″ animation_offset=””]

অস্ট্রেলিয়া সামগ্রিকভাবে একটি শক্তিশালী দল এবং ক্রিকেটের ওডিআই ফর্ম্যাটের ক্ষেত্রে তাদের প্রচুর অভিজ্ঞতা রয়েছে, তাই অস্ট্রেলিয়ার জন্য আজকের ম্যাচের জয়ের সম্ভাবনা বাড়ানো হয়েছে। আজকের ম্যাচের জন্য উভয় দলের জয়ের সম্ভাবনার সমীকরণটি আন্ডার হিসাবে উল্লেখ করা হয়েছে।

অস্ট্রেলিয়ার এই ম্যাচ জেতার সম্ভাবনা ৫৪ শতাংশ।
শ্রীলঙ্কার এই ম্যাচ জেতার সম্ভাবনা ৪৬ শতাংশ।

[/fusion_content_box][fusion_content_box title=”আজকের ম্যাচে টসের ভবিষ্যদ্বাণী” backgroundcolor=”” hue=”” saturation=”” lightness=”” alpha=”” icon=”” iconflip=”” iconrotate=”” iconspin=”” iconcolor=”” circlecolor=”” circlebordersize=”” circlebordercolor=”” outercirclebordersize=”” outercirclebordercolor=”” image=”” image_id=”” image_max_width=”” link=”” linktext=”Read More” link_target=”” animation_type=”” animation_direction=”left” animation_speed=”0.3″ animation_offset=””]এই সিরিজের প্রতিটি ম্যাচের সিদ্ধান্তে টস গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে। টসের ভবিষ্যদ্বাণী অনুযায়ী, যে দল টসে জিতবে তারা প্রথমে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নিতে পারে।[/fusion_content_box][fusion_content_box title=”পিচ রিপোর্ট” backgroundcolor=”” hue=”” saturation=”” lightness=”” alpha=”” icon=”” iconflip=”” iconrotate=”” iconspin=”” iconcolor=”” circlecolor=”” circlebordersize=”” circlebordercolor=”” outercirclebordersize=”” outercirclebordercolor=”” image=”” image_id=”” image_max_width=”” link=”” linktext=”Read More” link_target=”” animation_type=”” animation_direction=”left” animation_speed=”0.3″ animation_offset=””]কলম্বোর আর প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামে অস্ট্রেলিয়া বনাম শ্রীলঙ্কার সেন্ট ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে। এই স্টেডিয়ামের পিচ ব্যাটিংয়ের জন্য ভাল হলেও ক্যারিবিয়ানদের মন্থর পিচগুলির মধ্যে অন্যতম। রান করা খুব সহজ হবে না এবং এটি আসলে উভয় দলের জন্য একটি ভাল জিনিস হতে পারে। মোট ১৭০ রান একটি সমতুল্য স্কোর হতে পারে[/fusion_content_box][fusion_content_box title=”এই ম্যাচের আবহাওয়া প্রতিবেদন” backgroundcolor=”” hue=”” saturation=”” lightness=”” alpha=”” icon=”” iconflip=”” iconrotate=”” iconspin=”” iconcolor=”” circlecolor=”” circlebordersize=”” circlebordercolor=”” outercirclebordersize=”” outercirclebordercolor=”” image=”” image_id=”” image_max_width=”” link=”” linktext=”Read More” link_target=”” animation_type=”” animation_direction=”left” animation_speed=”0.3″ animation_offset=””]ম্যাচের দিন কলম্বোর আবহাওয়ার পূর্বাভাস খুব একটা ভালো নয়। দিনের বেশিরভাগ সময় বৃষ্টির পূর্বাভাস দেওয়া হয় এবং তাই মনে হচ্ছে আমরা একটি খেলা পেতে সংগ্রাম করতে যাচ্ছি।[/fusion_content_box][fusion_content_box title=”সম্ভাব্য প্লেয়িং ইলেভেন” backgroundcolor=”” hue=”” saturation=”” lightness=”” alpha=”” icon=”” iconflip=”” iconrotate=”” iconspin=”” iconcolor=”” circlecolor=”” circlebordersize=”” circlebordercolor=”” outercirclebordersize=”” outercirclebordercolor=”” image=”” image_id=”” image_max_width=”” link=”” linktext=”Read More” link_target=”” animation_type=”” animation_direction=”left” animation_speed=”0.3″ animation_offset=””]

শ্রীলঙ্কা: নিরোশান ডিকভেলা (উইকেট কিপার), কুসল মেন্ডিস, ধনঞ্জয়া ডি সিলভা, চারিথ আসালাঙ্কা, দাসুন শানাকা (অধিনায়ক), চামিকা করুনারত্নে, ডুনিথ ওয়েলালেজ, জেফরি ভান্ডারসে, দুষ্মন্ত চামিরা, মাহেশ থিকসানা, পাথুম নিসাঙ্কা।

অস্ট্রেলিয়া: ডেভিড ওয়ার্নার, অ্যারন ফিঞ্চ (অধিনায়ক), মিচেল মার্শ, মার্নাস লাবুশেন, ট্র্যাভিস হেড, অ্যালেক্স ক্যারি (উইকেট কিপার), গ্লেন ম্যাক্সওয়েল, ক্যামেরন গ্রিন, ঝাই রিচার্ডসন, ম্যাথু কুহনেম্যান, জশ হ্যাজলউড।

[/fusion_content_box][fusion_content_box title=”আজকের ম্যাচের জন্য ড্রিম ১১ ভবিষ্যদ্বাণী” backgroundcolor=”” hue=”” saturation=”” lightness=”” alpha=”” icon=”” iconflip=”” iconrotate=”” iconspin=”” iconcolor=”” circlecolor=”” circlebordersize=”” circlebordercolor=”” outercirclebordersize=”” outercirclebordercolor=”” image=”” image_id=”” image_max_width=”” link=”” linktext=”Read More” link_target=”” animation_type=”” animation_direction=”left” animation_speed=”0.3″ animation_offset=””]শ্রীলঙ্কা বনাম অস্ট্রেলিয়া-শ্রীলঙ্কা ত্রিদেশীয় সিরিজ ২০১৯-৪র্থ ওডিআইয়ের জন্য ড্রিম১১ ভবিষ্যদ্বাণী। সর্বশেষ খেলোয়াড়ের প্রাপ্যতা পরীক্ষা করার পরে, কোন খেলোয়াড়রা উভয় দলের অংশ হবে, সম্ভাব্য কৌশলগুলি যা দুটি দল ব্যবহার করতে পারে যেমনটি আমরা ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগের পূর্ববর্তী মরসুমগুলি থেকে শিখেছি সেরা সম্ভাব্য ড্রিম ১১ দল তৈরি করতে।[/fusion_content_box][fusion_content_box title=”শ্রীলঙ্কা বনাম অস্ট্রেলিয়া ফ্যান্টাসি টিম লাইনআপ” backgroundcolor=”” hue=”” saturation=”” lightness=”” alpha=”” icon=”” iconflip=”” iconrotate=”” iconspin=”” iconcolor=”” circlecolor=”” circlebordersize=”” circlebordercolor=”” outercirclebordersize=”” outercirclebordercolor=”” image=”” image_id=”” image_max_width=”” link=”” linktext=”Read More” link_target=”” animation_type=”” animation_direction=”left” animation_speed=”0.3″ animation_offset=””]

অধিনায়ক: ডি ওয়ার্নার
সহ-অধিনায়ক: ওয়ানিন্দু হাসারাঙ্গা
এ ফিঞ্চ, এম মার্শ, ডি গুনাথিলাকা, পি নিসানকা, গ্লেন ম্যাক্সওয়েল, জশ হ্যাজলউড, কে রিচার্ডসন, জে রিচার্ডসন

[/fusion_content_box][fusion_content_box title=”সম্পূর্ণ ম্যাচ তথ্য” backgroundcolor=”” hue=”” saturation=”” lightness=”” alpha=”” icon=”” iconflip=”” iconrotate=”” iconspin=”” iconcolor=”” circlecolor=”” circlebordersize=”” circlebordercolor=”” outercirclebordersize=”” outercirclebordercolor=”” image=”” image_id=”” image_max_width=”” link=”” linktext=”Read More” link_target=”” animation_type=”” animation_direction=”left” animation_speed=”0.3″ animation_offset=””]তারিখ: মঙ্গলবার, ২১ জুন ২০২২
সময়: ০৯:০০ AM GMT / ০২:৩০ PM স্থানীয় / ০২:৩০ PM IST[/fusion_content_box][fusion_content_box title=”স্থান বিবরণ” backgroundcolor=”” hue=”” saturation=”” lightness=”” alpha=”” icon=”” iconflip=”” iconrotate=”” iconspin=”” iconcolor=”” circlecolor=”” circlebordersize=”” circlebordercolor=”” outercirclebordersize=”” outercirclebordercolor=”” image=”” image_id=”” image_max_width=”” link=”” linktext=”Read More” link_target=”” animation_type=”” animation_direction=”left” animation_speed=”0.3″ animation_offset=””]স্টেডিয়াম: আর.প্রেমাদাসা স্টেডিয়াম
অবস্থান: কলম্বো, শ্রীলঙ্কা
খোলা: ১৯৮৬
ক্যাপাসিটি: ৩৫,০০০
ক্ষেতারমা স্টেডিয়াম (জুন ১৯৯৪ পর্যন্ত)
সমাপ্তি: খেত্তারামা শেষ, স্কোরবোর্ড শেষ
সময় অঞ্চল: ইউটিসি +০৩:০০
হোম: শ্রীলঙ্কা
ফ্লাডলাইট: হ্যাঁ[/fusion_content_box][fusion_content_box title=”ওডিআইতে ভেন্যু স্কোরিং প্যাটার্ন” backgroundcolor=”” hue=”” saturation=”” lightness=”” alpha=”” icon=”” iconflip=”” iconrotate=”” iconspin=”” iconcolor=”” circlecolor=”” circlebordersize=”” circlebordercolor=”” outercirclebordersize=”” outercirclebordercolor=”” image=”” image_id=”” image_max_width=”” link=”” linktext=”Read More” link_target=”” animation_type=”” animation_direction=”left” animation_speed=”0.3″ animation_offset=””]

  • মোট ম্যাচ: ১৩৮
  • প্রথমে ব্যাট করে জেতা ম্যাচ: ৭৪
  • প্রথমে বোলিং করে জেতা ম্যাচ: ৫৪
  • গড় ১ম ইনিংস স্কোর: ২৩৬
  • গড় ২য় ইনিংস স্কোর: ১৯৭
  • সর্বোচ্চ মোট রেকর্ড: আইএনডি বনাম এসএল দ্বারা ৩৭৫/৫৪ ওভার)
  • সর্বনিম্ন মোট রেকর্ড: ৮৬/১০ (২৯.৩) দ্বারা নেদারলেন্ড বনাম শ্রিলংকা
  • সর্বোচ্চ স্কোর তাড়া করা: ২৯২/৪ (৪৮.৩ ওভার) দ্বারা শ্রিলংকা বনাম অস্টলিয়া
  • সর্বনিম্ন স্কোর রক্ষিত: ২০৪/৭ (৫০ ওভার ) দ্বারা শ্রিলংকা বনাম ভারত

[/fusion_content_box][fusion_content_box title=”শ্রীলঙ্কা ওডিআই দল” backgroundcolor=”” hue=”” saturation=”” lightness=”” alpha=”” icon=”” iconflip=”” iconrotate=”” iconspin=”” iconcolor=”” circlecolor=”” circlebordersize=”” circlebordercolor=”” outercirclebordersize=”” outercirclebordercolor=”” image=”” image_id=”” image_max_width=”” link=”” linktext=”Read More” link_target=”” animation_type=”” animation_direction=”left” animation_speed=”0.3″ animation_offset=””]দানুশকা গুনাথিলাকা, ওয়ানিন্দু হাসারাঙ্গা, দিনেশ চান্দিমাল, ভানুকা রাজাপাকসে, লাহিরু মাদুশাঙ্কা, রমেশ মেন্ডিস, অসিথা ফার্নান্দো, প্রবীণ জয়াবিক্রমা, প্রমোদ মাদুশান, নুয়ান থুসারা, পাথুম নিশাঙ্কা, নিরোশান ডিকভেলা (উইকেট কিপার), কুসল মেন্ডিস, ধনঞ্জয়া ডি সিলভা, চারিথ আসালাঙ্কা, দাসুন শানাকা (অধিনায়ক), চামিকা করুনারত্নে, ডুনিথ ওয়েলালেজ, জেফরি ভান্ডারসে, দুষ্মন্ত চামিরা, মাহেশ থিক্সানা।[/fusion_content_box][fusion_content_box title=”অস্ট্রেলিয়া ওডিআই দল” backgroundcolor=”” hue=”” saturation=”” lightness=”” alpha=”” icon=”” iconflip=”” iconrotate=”” iconspin=”” iconcolor=”” circlecolor=”” circlebordersize=”” circlebordercolor=”” outercirclebordersize=”” outercirclebordercolor=”” image=”” image_id=”” image_max_width=”” link=”” linktext=”Read More” link_target=”” animation_type=”” animation_direction=”left” animation_speed=”0.3″ animation_offset=””]স্টিভেন স্মিথ, প্যাট কামিন্স, মিচেল সুইপসন, জশ ইংলিস, ডেভিড ওয়ার্নার, অ্যারন ফিঞ্চ (অধিনায়ক), মিচেল মার্শ, মার্নাস লাবুশেন, ট্রাভিস হেড, অ্যালেক্স ক্যারি (উইকেট কিপার), গ্লেন ম্যাক্সওয়েল, ক্যামেরন গ্রিন, ঝাই রিচার্ডসন, ম্যাথু কুহনেম্যান, জশ হ্যাজলউড[/fusion_content_box][/fusion_content_boxes][/fusion_builder_column][/fusion_builder_row][/fusion_builder_container]