কাউন্টি চ্যাম্পিয়নশিপের প্রথম বিভাগে এসেক্সের বিপক্ষে ব্যাট ও বলের অবিশ্বাস্য নৈপুণ্যে ওয়ারউইকশায়ার জয় লাভ করে।

দুর্দান্ত অলরাউন্ড পারফরম্যান্স এবং তার সহকর্মী বোলার ক্রিস রাশওয়ার্থের সহায়তায় আলী দলের চার উইকেটের জয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছিলেন।

দ্বিতীয় ইনিংসে আলি ও রাশওয়ার্থ উভয়েই চারটি করে উইকেট নিতে সক্ষম হন, যার ফলে এসেক্স মাত্র ৯৯ রানের লিড পায়। বোলিংয়ের এই অসাধারণ প্রদর্শন ওয়ারউইকশায়ারকে খেলাটির নিয়ন্ত্রণ অর্জন করতে দেয়, বিশেষত যখন তারা তাদের প্রথম ইনিংসে ২৪২ রানে আউট হয়েছিল, ১১৬ রানের লিড নিয়েছিল।

ওয়ারউইকশায়ারের ব্যাটিংয়ের সময়ও আলী গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছিলেন, চারটি বাউন্ডারি এবং সমান সংখ্যক ছক্কা সহ গুরুত্বপূর্ণ ৫৩ রান করেছিলেন। তার চিত্তাকর্ষক পারফরম্যান্স প্রতিপক্ষের ১২৬ রানের জবাবে তার দলকে মোট ২৪২ রানে পৌঁছাতে সহায়তা করেছিল।

২৩.৪ ওভারে ৭৯ রান খরচ করে ম্যাচে মোট ছয় উইকেট নেন এই পাকিস্তানি পেসার।

এই জয়ের ফলে ওয়ারউইকশায়ার এখন কাউন্টি চ্যাম্পিয়নশিপ ডিভিশন ওয়ান টেবিলের শীর্ষে রয়েছে।